চাহিদা স্থানীয় বাজার

চাহিদা স্থানীয় বাজার এমন একটি গ্রোসারি শপ বা মুদিখানা এবং কাঁচাবাজার যেখানে মানুষের দৈনিক প্রয়োজনীয় প্রায় সকল সামগ্রীই পাওয়া যায় । বাংলাদেশে চাহিদাই একমাত্র প্রথম প্রতিষ্ঠান যারা সারাদেশেই এলাকাভিত্তিক দামে কাঁচাবাজার সহ বিভিন্ন প্রকার স্থানীয় পণ্য গ্রাহকের কাছে পৌঁছাই দিচ্ছে কোনোপ্রকার ঝামেলা ছাড়াই। এখন মানুষ তুলনামূলকভাবে অনেকটাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছে তাই সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে সকল কাজ করা সম্ভব হয়ে উঠে না, আর এজন্যই চাহিদা আপনাদের সময়ের মূল্য বুঝে অন্তত বাজারের জন্য যে সময়টুকু ব্যয় হবে সেটি বাঁচিয়ে দিতে পারবে। এছাড়াও অনেক ক্ষেত্রেই স্বাধারণ দোকানে পণ্য ক্রয়ে অর্থনৈতিকভাবে ঠকে যেতে হয় কিন্তু আমাদের এখান থেকে একেবারে ন্যায্য মূল্যে সঠিক পণ্যটি পৌঁছিয়ে দেওয়া হয়। আরো একটি বড় সমস্যা হচ্ছে পণ্যের মান, যা চাহিদা সর্বোচ্চ ভালোটাই প্রদান করারা চেষ্টা করে। বাজারের পাশাপাশি চাহিদা স্থানীয় বাজার কিছু সেবাও চালু করেছে যা গ্রাহকের সকল প্রকার সেবামূলক ঝামেলা থেকে দূরে রাখবে।

আমাদের বৈশিষ্ট্য

একক ব্র্যান্ডিং এর
আওতায় বিজনেস

প্রান্তিক পর্যায়ে
ইকমার্স

স্থানীয় পণ্য ও
দাম নিয়ন্ত্রণ

সারা দেশে সফল
উদ্যোক্তা তৈরি

উদ্যোক্তা হতে যা জানতে হবে

  • নিজস্ব একটি বিজনেস রুম বা অফিস বা দোকান।
  • অনলাইন, কম্পিউটার, ওয়েবপেইজ ও ইন্টারনেট সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান।
  • নিজের প্রতিষ্ঠানে ইন্টারনেট সহ কম্পিউটার ও প্রিন্টার।
  • একটি ব্যবসা নিজ এলাকায় সফলভাবে শুরু করার আগে ব্র্যান্ডিং অতীব জরুরী (যেমনটা জরুরী একটি দোকান শুরুর আগে ডেকোরেশনের সহ আনুষঙ্গিক অনেক কিছুরই) আর তাই নিজ এলাকার প্রচারের জন্য খরচ করার মানসিকতা। যেখানে চাহিদার কোন প্রকার বাধ্যতামূলক নিতি থাকবে না।

একটি অফিস বা দোকানে বসে ইন্টারনেট কানেকশন সহ একটি মোবাইল অথবা ল্যাপটপ মাঝে মাঝে চেক করতে হবে আপনার এলাকায় কি কি অর্ডার আসছে।

সেই অর্ডার গুলো প্রিন্ট আউট করে ডেলিভারি ম্যান কে লিস্ট দিয়ে দিবেন, সে নির্দিষ্ট হোলসেল দোকান থেকে পণ্য সংগ্রহ করে যথা সময় ডেলিভারি করবে। আপনি তা মনিটরিং করবেন। এতটুকুই কাজ আপনার।

চাহিদা উদ্যোক্তা এমন একটি ব্যবস্থা যেখানে আপনার এলাকার বা আপনার শপের সম্পুর্ণ বিজনেস আপনার নিজস্ব। আপনার সেল কিংবা লাভ থেকে কোন অংশই চাহিদা গ্রহণ করবে না। তাই আপনার ব্যবসার জন্য প্রচারণা থেকে শুরু করে অর্ডার আনয়ন সম্পুর্ণ আপনাকেই করতে হবে।
যার ফলে অনলাইন কিংবা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সরাসরি আপনার কাছে অর্ডার আসবে এবং মেইল কিংবা ড্যাশবোর্ড নোটিফিকেশন এর মাধ্যমে সরাসরি আপনি দেখতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে আলোচিত একটা বিষয় হচ্ছে ই-কমার্স বিজনেস, যাকে অন্য ভাবে বলে ইলেক্ট্রনিক কমার্স যা ইন্টারনেট এর মাধ্যমে সম্পন্ন হচ্ছে। বর্তমানে সারা বিশ্বে সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য এবং দ্রুতসময়ে পণ্য প্রাপ্তির ক্ষেত্রে ই-কমার্স অনেক জোরালো ভুমিকা রেখেই চলেছে। তাই এই ব্যবসার সম্ভাবনা অনেক বেশি।
বর্তমানে মানুষ কাজ নিয়ে অনেক ব্যাস্ত থাকি তাই বাজার করা নিয়ে সময় বের করাটা অনেক কঠিন হয়ে যায়। আর একারণেই দিনে দিনে মানুষ ই-কমার্স নির্ভর হয়ে উঠছে। যার কারনে এ সেক্টরে বিজনেস এর সম্ভাবনা অনেক পরিমান।

ব্যবসা মানেই কিছু ইনভেস্ট তো থাকবেই তবে প্রযুক্তির সহযোগিতায় ভার্চুয়াল বিজনেস এর উদ্যোক্তা পয়েন্ট নিতে পারলে তেমন কোন ইনভেস্ট করতে হবে না। কিছু ইনভেস্ট করতে হবে যা আপনার নিজের এলাকার স্থানীয় বাজারকে ব্র্যান্ডিং ও প্রয়োজনীয় অফিস উপকরণ ক্রয়ে খরচ হবে। যেমন আপনাকে আপনার লোকাল কিছু ব্র্যান্ডিং এর জন্য নিজস্ব উদ্দ্যগে প্রচারণার খরচ বহন করতে হবে যাতে আপনার এলাকায় অর্ডার বৃদ্ধি পায় সেটা আপনার স্বদিচ্ছার উপর নির্ভর করছে। যে টাকা আপনি নিজে থেকেও খরচ করতে পারবেন অথবা আমাদের মাধ্যমেও করাতে পারবেন। তবে সঠিক ভাবে খরচ করানোর জন্য আমাদের মাধ্যমে করানোটাকেই রিকমেন্ড করি। একটা ট্রেডিশনাল মূদি দোকানের জন্য ১০-১৫ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করতে হয় আর সেখান থেকে ক্রয় করে শুধুমাত্র ওই পাড়া বা মহল্লার কাস্টমাররা। কিন্তু আপনার এই অনলাইন স্থানীয় বাজার ব্যবসাতে পুরো পৌরসভার সকলই আপনার কাস্টমার। তাই নিজের ব্যবসা বৃদ্ধির জন্য আপনি যতো প্রচারণা করবেন আপনার ততো প্রবৃদ্ধি হবে, আর সেজন্য খরচ করার মানসিকতা থাকতে হবে। এর মানে এই নয় যে চাহিদাকে এই অর্থ দিতে হবে। বরং চাহিদার মাধ্যমে করলে ব্যবিসার সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য সেখানে চাহিদা কিছু ভুর্তুকি প্রদান করবে। এটি আপনিই খরচ করবেন আপনার কাজে দ্রুত ব্যবসা বৃদ্ধির জন্য। এ নিয়ে যে কোন ধরণের সঠিক গাইডলাইন এর জন্য চাহিদা সর্বাত্বক সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।

প্রথম অবস্থায় আপনি ৪-৫ জন পাইকারি দোকানদার যেমনঃ ফলের দোকান, সব সবজি পাওয়া যায় এমন সবজির দোকান, মাছের দোকান, মাংসের দোকান এবং মুদি দোকানের সাথে কথা বলে রাখবেন যে আমার ডেলিভারি ম্যান লিস্ট নিয়ে আপনার কাছে পণ্য নিতে আসবেন আপনি পাইকারি মূল্যে আমাদের সকল পণ্য দেবার চেষ্টা করবেন কেননা আমাদের দিনদিন ব্যপক অর্ডার বৃদ্ধি পাবে। সেই অর্ডারকৃত পণ্য নিয়ে ডেলিভারি ম্যান ডেলিভারি করবে। ডেলিভারি শেষে আপনাকে হিসাব বুঝিয়ে দিবে। প্রাথমিক অবস্থায় এইটুকু মনিটরিং করতে পারলেই হবে। যদি আপনার আগে থেকেই এই ধরণের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থাকে তাহলে তো আরো লাভ করতে পারবেন কিংবা নিজে থেকে যদি সকল পণ্য ষ্টক করতে পারেন তাহলে আরো অনেক ভালো ।

ব্যবসা যেহেতু সম্পুর্ণই আপনার তাই ডেলিভারি থেকে শুরু করে অন্যন্য সকল ব্যয় আপনাকেই বহন করতে হবে। ডেলিভারি পার্সোন নির্বাচনও আপনাকেই করতে হবে। আমরা এই ব্যপারে আপনাকে পরামর্শ হিসেবে বলতে পারি। ১ম ৩ মাস পরীক্ষামূলকভাবে ১-৩ জন ডেলিভারি ম্যান নিয়োগ দিন। পরীক্ষামূলকভাবে থাকাকালীন তাদেরকে প্রতি ডেলিভারিতে ২৫ টাকা হারে প্রদান করতে পারেন। যাতে দেখা যাচ্ছে দিনে ১০ টা ডেলিভারিও যদি করে তাহলে মাসে ৭৫০০ টা পাচ্ছে আর ১০ টা ডেলিভারি করতে সর্বোচ্চ ৪-৫ ঘন্টা লাগবে। এভাবে তারা তিনমাস কাজ করবে পরবর্তিতে সব সময়ের জন্য পার্মানেন্ট আপনার অফিসে নিযূক্ত করতে পারেন। ২০ টাকা ডেলিভারি চার্জ নিয়ে ২৫ টাকা করে দিবেন এখানে ৫ টাকা আপনার ভুর্তুকি হলেও আশাকরি ভালো ফলাফল হবে। তবে এটা সম্পুর্ণই আপনার উপর নির্ভর করবে আপনি কিভাবে নিবেন।

সাবস্ক্রিপশন ফি

৩,৬৫০ টাকা / বছর

অনলাইন সুপার সপ এর উদ্যোক্তা
১০ দৈনিক
  • উদ্যোক্তা প্যানেল
  • আনলিমিটেড পণ্য
  • আনলিমিটেড অর্ডার
  • কাস্টমার তথ্যাদি
  • হিসাব প্যানেল
  • ওয়েব মেইনটেনেন্স
  • ফ্রী মোবাইল অ্যাপ
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন সাপোর্ট
  • ব্র্যান্ডিং পণ্য ক্রয় ব্যাবস্থা
  • উদ্যোক্তা হেল্পডেস্ক

আবেদন ফরম